Logo

এসি ব্যবহারে সতর্ক হওয়া জরুরী

প্রকৌ. বেনজীর আহমেদ সহকারী প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ), প্রকৌশল অফিস ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (ডুয়েট), গাজীপুর। / ৬৭৮ বার
আপডেট সময় : সোমবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০

এসি ব্যবহারে সতর্ক হওয়া জরুরী, প্রকৌশলী বেনজীর আহমেদ।

বর্তমানে গরমকালে তাপমাত্রা বেড়ে যাওয়ায় এবং এসির দাম তুলনামূলক কম থাকার কারনে অফিস-আদালত সহ বাসা-বাড়ীতে অনেকেই এসি ব্যবহার করছে। এসির ব্যবহার বাড়ার সাথে সাথে বাড়ছে দূর্ঘটনাও। গত ২০১৯ সালে ঢাকা ও গাজীপুরে কয়েকটি এসি বিস্ফোরনের ঘটনা ঘটেছে এবং অনেক মানুষ হতাহত হয়েছে। এসি ব্যবহারে সতর্কতা অবলম্বন ছাড়া এসব দূর্ঘটনা রোধ করা সম্ভব নয়।

এসি কর্তৃক দূর্ঘটনা সংগঠিত হওয়ার কয়েকটি কারন ও প্রতিকার উল্লেখ করা হলঃ

১। নিম্নমানের এসির ব্যবহারঃ
নিম্নমানের এসির ভেতরের বিভিন্ন যন্ত্রাংশ এবং ফ্যান, তার তথা বিদ্যুতের ব্যবস্থাগুলো সঠিক থাকে না। ফলে সেখানে কারিগরি ত্রুটি দেখা যায়, যা অনেক সময় আগুনের সূত্রপাত করতে পারে। বিশেষ করে বাজারে বিদেশী নামী-দামী ব্র্যান্ডের এসির স্টিকার ব্যবহার করে কিছু অসাধু ব্যবসায়ী গ্রাহকদের কাছ থেকে চড়া মূল্য নিয়ে নকল পণ্য বুঝিয়ে দেন। ঐসব পণ্যের সঠিক গুনগত মান ঠিক থাকে না ফলে দূর্ঘটনা ঘটার সম্ভাবনা বেশি থাকে। তাই এসি কেনার সময় বিভিন্ন অফারের লোভে না পড়ে ভালভাবে যাচাই করে আসল পণ্য কেনা উচিত।

২। নিয়মিত রক্ষণাবেক্ষনের অভাবঃ
অনেক সময় কম্প্রেসারের ভেতরে ময়লা আটকে জ্যাম তৈরি হয় অথবা গ্যাস লিক হয়ে এসির ভেতর বা রুমের ভেতর জমে; এই জ্যাম আর লিক সময়মতো সার্ভিসিং না করালে বিস্ফোরণ ঘটতে পারে। এছাড়া এসির ফিল্টার নিয়মিত পরিষ্কার না করার কারনেও বিস্ফোরণ ঘটতে পারে। বছরে কমপক্ষে একবার এসি সার্ভিসিং করানো প্রয়োজন। প্রতি বছর শীতের সময় অনেকদিন এসি বন্ধ থাকার পর চালু করার আগে ভেতরে জমে থাকা ময়লা পরিষ্কার করে এসি চালু করা প্রয়োজন।

৩। সঠিক ক্ষমতার এসি ব্যবহার না করাঃ
অনেকে রুমের লোড অনুপাতে এসি ব্যবহার করেন না। ফলে এসিটিকে অনেকক্ষণ ধরে চলতে হয়, ফলে অতিরিক্ত গরম হয়ে যায়, যা ঝুকিপূর্ণ। কত টনের এসি কিনবেন, তা নির্ণয়ের সময় রুমের আকার জানার পাশাপাশি রুমটি কততম ফ্লোরে অবস্থিত, সূর্যের তাপ দেয়ালের কোন পাশে লাগে, রুমে কতজন মানুষ থাকবে, রুমে কোন হিটিং জিনিসপত্র যেমন- ওভেন বা আয়রন ব্যবহার করবেন কিনা, জানালা, দরজা, পর্দা, সিলিং, ফ্লোর- এসবের হিট কন্ডাকটিভিটি কেমন এসব বিষয় বিবেচনা করতে হবে। তবে সাধারণত আপনার রুম যদি ১০০-১২০ স্কয়ার ফুট হয়, সেক্ষেত্রে ১ টন এসি যথেষ্ট। ১২০-১৫০ স্কয়ার ফুট ঘরের জন্য প্রয়োজন ১.৫ টন এসি, ১৫০-২০০ স্কয়ার ফুট বা তার বেশি আয়তনের ঘরের জন্য প্রয়োজন ২ টন ক্ষমতার এসি।

৪। বৈদ্যুতিক ব্যবস্থা সঠিক না থাকাঃ
সঠিক মানের ক্যাবল দিয়ে এসির লাইন নির্মাণ না করলে এসি চলমান অবস্থায় অতিরিক্ত কারেন্টের জন্য ক্যাবল পুড়ে গিয়ে বড় ধরনের দূর্ঘটনা এমনকি এসি বিস্ফোরণের মত ঘটনা ঘটতে পারে। অনেক সময় বৈদ্যুতিক হাই ভোল্টেজের কারণেও এসব ঘটনা ঘটে। হাইভোল্টেজের কারণে যেকোনো ইলেক্ট্রিক মেশিনের ওপর চাপ সৃষ্টি হলেই সেখানে সমস্যা হয় এবং একসময় বিস্ফোরণের মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়। উক্ত পরিস্থিতি মোকাবেলায় সঠিক মানের ক্যাবল এবং সার্কিট ব্রেকার ব্যবহার করে লাইন নির্মাণ করতে হবে এবং গরমের শুরুতেই এসির বৈদ্যুতিক সংযোগ, সকেট, ফিল্টার—এসবের অবস্থাটা ঠিকমতো পরীক্ষা করতে হবে। হাইভোল্টেজ এড়ানোর জন্য বজ্রপাতের সময় এসি বন্ধ রাখা এবং প্রতিটি ভবনের ছাদে লাইটনিং এ্যারেস্টর ব্যবহার করা উচিত।

৫। একটানা অনেকক্ষণ এসি চালু রাখাঃ
আমাদের কখনোই ২৪ ঘণ্টা এসি চালু রাখা ঠিক নয়। দীর্ঘক্ষণ চালু থাকলে এসির যন্ত্রপাতি অতিরিক্ত গরম হয়ে আগুন ধরে যেতে পারে। একটানা না চালিয়ে বেশ কিছুক্ষণ পর পর অন্তত এক-দুই ঘণ্টা এসিকে বিশ্রাম দিলে ঝুঁকিমুক্ত থাকা যায়। রাতের শেষভাগে এসি বন্ধ রাখাই উত্তম। কারণ রাতের শেষভাগে গরম কম থাকে এবং রাতে যতটুকু চলে তাতে দরজা-জানালা বন্ধ থাকলে ভোর পর্যন্ত কক্ষ এমনিতেই ঠান্ডা থাকে এবং বিদ্যুৎ বিলও সাশ্রয় হয়।
তাছাড়া অনেক সময় উইন্ডো টাইপ এসির সামনে জানালা বা দরজার পর্দা চলে আসলে বাতাস চলাচলে বাধাগ্রস্ত হয়। সেটিও এসিকে গরম করে তুলতে পারে।
এসি ব্যবহারের ক্ষেত্রে উপরোক্ত বিষয়গুলো মাথায় রাখলে অনাকাংখিত দূর্ঘটনা থেকে রেহাই পাওয়া সম্ভব।

লেখক
প্রকৌ. বেনজীর আহমেদ
সহকারী প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ), প্রকৌশল অফিস
ঢাকা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (ডুয়েট), গাজীপুর।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর

পুরাতন খবর

MonTueWedThuFriSatSun
1234567
891011121314
15161718192021
22232425262728
293031    
       
1234567
       
       
    123
11121314151617
18192021222324
25262728293031
       
282930    
       
    123
45678910
       
সেহরির শেষ সময় - ভোর ৫:০৪
ইফতার শুরু - সন্ধ্যা ৬:০৫
  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৫:০৯
  • ১২:১৪
  • ৪:২২
  • ৬:০৫
  • ৭:১৮
  • ৬:২০
Theme Created By ThemesDealer.Com