Logo
শিরেোনাম ::
গাউছিয়া অটো রাইচ মিল মালিকের পক্ষ থেকে পটিয়া মুন্সেফ বাজারে পণ্য বিক্রয় কেন্দ্রের শুভ উদ্বোধন গরীব,দুস্থ ও জেলেদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করলেন প্রকৌশলী মোহাম্মদ হোসাইন বিশ্বসেরা গবেষকদের তালিকায় ডুয়েটের ১৯ শিক্ষক বিশ্বসেরা গবেষকদের তালিকায় পবিপ্রবির ২৩ শিক্ষক তানোর উপজেলা বাসীকে শারদীয় দূর্গা পূজার আগাম শুভেচ্ছা জানিয়েছেন যুবলীগ নেতা মঈনুদ্দীন সোনার বাংলা সমাজকল্যাণ সংস্থার নতুন সভাপতি মোঃ আবুল হোসাইন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ কামরুল হাসান শ্রীমঙ্গলে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী ভানুর জয় অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির জন্য মা ইলিশ রক্ষার বিকল্প নেই: হোসাইন ডুয়েটে ২০২০-২১ সেশনের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী জামাত বিএনপি কর্মী ফয়জুর রহমান

বাঘায় গ্রাম রক্ষা বাঁধে ভাঙন, আতঙ্কে এলাকাবাসী

মোঃ বাপ্পী রহমান, রাজশাহী জেলা প্রতিনিধি / ৭৭ বার
আপডেট সময় : রবিবার, ১৯ জুলাই, ২০২০

রাজশাহী প্রতিনিধি : রাজশাহীর বাঘা উপজেলার পাকুড়িয়া ইউনিয়নের নাপিতপাড়া গ্রামের পাশে পদ্মা রক্ষা বাঁধে ভাঙন শুরু হয়েছে। ভাঙন শুরুর পর পানি উন্নয়ন বোর্ডের পক্ষ থেকে জিও ব্যাগ ফেলে গ্রাম রক্ষা করার চেষ্টা করা হচ্ছে। শনিবার (১৮ জুলাই) সকাল থেকে এই জিও ব্যাগ ফেলা শরু করা হয়েছে।

জানা যায়, পদ্মার পানি বাড়তে থাকায় উপজেলার পাকুড়িয়া ইউনিয়নের নাপিতপাড়া এলাকায় ভাঙনের তীব্রতাও বাড়তে শুরু করে। বিষয়টি পাকুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মেরাজুল ইসলাম মেরাজ ঘটনাস্থল দেখে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর মাধ্যমে রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডকে অবগত করেন। পরে রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ড জিও ব্যাগ ফেলে গ্রাম রক্ষা করার চেষ্টা করছে। এই বাঁধে ভাঙন দেখা দেয়ায় পদ্মার তীরবর্তী বাসিন্দার মাঝে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

পদ্মার পাড় কয়েক বছর থেকে ব্যাপকভাবে ভাঙছে। এই ভাঙন থেকে রক্ষার জন্য আলাইপুর থেকে চকরাজাপুর পর্যন্ত ১২ দশমিক ১ কিলোমিটার পদ্মা নদীর বাঁধের কাজ চলতি বছরের ১৮ ফেব্রুয়ারী চার অর্থ বছরে সম্পূর্ণ করার নির্দেশনা দিয়ে ৭২২ কোটি ২৪ লাখ টাকার প্রকল্প একনেকে অনুমোদন হয়েছে। কাজ শুরু হওয়ার আগে তীব্র ভাঙন দেখা দিয়েছে। ফলে কোন উপায় না পেয়ে জিও ব্যাগ ফেলে বাঁধটি অস্থায়ীভাবে রক্ষা করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

শনিবার সকালে ভাঙনকবলিত বাঁধ ঘুরে দেখা গেছে, তীব্র স্রোতের কারণে বাঁধের তলদেশে ভাঙছে। বাঁধের এই নাজুক পরিস্থিতিতে পানি উন্নয়ন বোর্ড জিও ব্যাগ ফেলা শুরু করেছে। তারপরও এলাকাবাসীর মাঝে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

চলতি মাসের প্রথম দিকে আকস্মিকভাবে পদ্মায় পানি বৃদ্ধি হতে শুরু করে। এক সপ্তাহে পানি বৃদ্ধিও কারনে বিপদসীমার কাছাকাছি পৌঁছেছে। ফলে স্রোতের তীব্রতাও বাড়ছে।

পাকুড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মেরাজুল ইসলাম মেরাজ বলেন, মাননীয় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর সার্বিক সহযোগিতায় চলতি বছরে ৭২২ কোটি ২৪ লাখ টাকার বাঁধ নির্মান প্রকল্প একনেকে অনুমোদন হয়েছে। বর্ষা মৌসুম শেষে বাঁধ নির্মান কাজ শুরু হবে। তবে ভাঙনস্থানে জিও ব্যাগ ফেলা না হলে আলাইপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় তলিয়ে যেতো। আগেই ব্যবস্থা করায় এলাকা রক্ষা করা সম্ভব হয়েছে। তারপরও ঝুঁকিতে রয়েছে বাঁধটি।

রাজশাহী পানি উন্নয়ন বোর্ডের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মোকলেছুর রহমান বলেন, বাঘার পদ্মা নদীর আলাইপুর এলাকার নাপিতপাড়া নামকস্থানে সামান্য অংশ ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। তবে এ নিয়ে আশঙ্কার কিছু নেই। ভাঙন প্রতিরোধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com