Logo
শিরেোনাম ::
গাউছিয়া অটো রাইচ মিল মালিকের পক্ষ থেকে পটিয়া মুন্সেফ বাজারে পণ্য বিক্রয় কেন্দ্রের শুভ উদ্বোধন গরীব,দুস্থ ও জেলেদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করলেন প্রকৌশলী মোহাম্মদ হোসাইন বিশ্বসেরা গবেষকদের তালিকায় ডুয়েটের ১৯ শিক্ষক বিশ্বসেরা গবেষকদের তালিকায় পবিপ্রবির ২৩ শিক্ষক তানোর উপজেলা বাসীকে শারদীয় দূর্গা পূজার আগাম শুভেচ্ছা জানিয়েছেন যুবলীগ নেতা মঈনুদ্দীন সোনার বাংলা সমাজকল্যাণ সংস্থার নতুন সভাপতি মোঃ আবুল হোসাইন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ কামরুল হাসান শ্রীমঙ্গলে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী ভানুর জয় অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির জন্য মা ইলিশ রক্ষার বিকল্প নেই: হোসাইন ডুয়েটে ২০২০-২১ সেশনের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ নৌকার মনোনয়ন প্রত্যাশী জামাত বিএনপি কর্মী ফয়জুর রহমান

মৃত করোনা রোগীর গলাকাটা বিল বেসরকারী হাসপাতাল পার্কভিউতে

আনিন্দ্য বৈদ্য সানি,চীফ ব্যুরো চট্টগ্রাম / ৩০৮ বার
আপডেট সময় : রবিবার, ১৯ জুলাই, ২০২০

আনিন্দ্য বৈদ্য সানি,চীফ ব্যুরো চট্টগ্রামঃনগরীর বেসরকারি হাসপাতাল পার্কভিউতে মৃতব্যক্তির বিল নিয়ে হয়রানির শিকার হওয়ার অভিযোগ করেছে এক ভুক্তভোগী পরিবার। মৃতব্যক্তির স্বজনরা ইঞ্জিনিয়ার্স নিউজ২৪ কে অভিযোগে বলেন- সাড়ে ১৩ দিনে করোনায় আক্রান্ত মৃতব্যক্তির বিল ৬ লাখ ৯৭ হাজার ৫১৯ টাকা ধার্য করে পার্কভিউ হাসপাতাল। সেই হিসেবে একদিনে করোনা রোগীর বিল এসেছে ৫৩ হাজার ৬৫৫ টাকা। এক বিলে অক্সিজেন, কনসালটেন্ট ও সার্ভিস চার্জ দুই দফায় টাকার হেরফের করা হয়েছে। এছাড়াও ১ লাখের বেশি মেডিসিন বিল ধরা হয়েছে। অথচ মৃতের পরিবার সমস্ত ওষুধ সরবরাহ করেছে বলে দাবি স্বজনদের।

মৃতের পরিবারের সাথে কথা বলে জানা যায়,করোনায় আক্রান্ত হয়ে মো. সেলিম গত ৪ জুলাই পার্কভিউ হাসপাতালে ভর্তি হয়। ভতির সময় তাদেরকে হাসপাতালে ৫০ হাজার টাকা অগ্রিম জমা দিতে বলা হয় এবং তারা তা জমা দিয়ে মো. সেলিমের চিকিৎসা শুরু করান। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় মো. সেলিমের পরিবার হাসপাতালের ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী সকল ধরনের ওষুধ সরবরাহ করেন।

এরমধ্যে গত ১০ জুলাই ৫০ হাজার টাকা, ১১ জুলাই ১ লাখ টাকা, ১২ জুলাই ৫০ হাজার টাকা, ১৩ জুলাই ৫০ হাজার টাকা, ১৫ জুলাই ১ লাখ টাকা করে আরো ৫ দফায় ৩ লাখ ৫০ হাজার টাকা জমা দেন।

গত ১৭ জুলাই মো. সেলিমের মৃত্যু হয়। মো. সেলিমের মৃত্যুর পরে হাসপাতাল থেকে মৃতের পরিবারের কাছে ৬ লাখ ৯৭ হাজার ৫১৯ টাকার বিলের রশিদ দেয়া হয়। যেখানে ভর্তির সময় জমা দেয়া ৫০ হাজার টাকাসহ ৪ লাখ টাকা জমা দেখিয়ে আরো ২ লাখ ৯৭ হাজার ৫১৯ টাকা জমা দিতে বলা হয়। বিল দেখে মৃতের পরিবার হতবাক হয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সাথে দফায় দফায় কথা বলেন। পরবর্তীতে স্থানীয় রাজনৈতিক নেতাদের মাধ্যমে সুপারিশ করে তারা ১ লাখ ৪৭ হাজার ৫১৯ টাকা ছাড় পেয়ে বাকী দেড় লাখ টাকা হাসপাতালে পরিশোধ করে মো. সেলিমের লাশ নিয়ে যায়।

মৃত মো. সেলিমের ভাই মো. আমানউল্লাহ ইঞ্জিনিয়ার্স নিউজ কে বলেন, ‌‘পার্কভিউ হাসপাতালে আমার ভাইকে চিকিৎসার জন্য যে বিল দেখিয়েছে তা সম্পূর্ণ বানোয়াট বিল। বিলে একেক অংকে অক্সিজেন, কনসালটেন্ট ও সার্ভিস চার্জ দুই বার ধরা হয়েছে। অক্সিজেন বিল একটা হলো ৭৭ হাজার ৮০০ ও আরেকটি ১ লাখ ৩০ হাজার ৫০০ টাকা। একইভাবে কনসালটেন্ট ফি এক জায়গায় ধরেছে ১৮ হাজার টাকা, আবার ডাক্তার বাসা থেকে ওদের সাথে কথা বলার কারণে হোম কনসালটেন্ট ফি ধরেছে ২৮ হাজার টাকা। সার্ভিস চার্জ এক জায়গায় ৩৪ হাজার ২০০ টাকা ধরেছে। আবার ১ লাখ ১৬ হাজার ২৫৩ টাকা সাভিস চার্জ ধরেছে। অর্থাৎ আমরা শুধু সার্ভিস চার্জ দিয়েছি দেড় লাখ টাকার বেশি।’

তিনি আরো বলেন, ‌‘এছাড়া আমরা সব ওষুধ কিনে দিয়েছি। কিন্তু হাসপাতাল থেকে মেডিসিন চার্জ ধরেছে ১ লাখ টাকার বেশি। এসব তো কোনো হাসপাতালের কাজ হতে পারে না। প্রশাসনও এসব নিয়ে কিছু করে না। তারা যদি হাসপাতালের নামে এরকম কসাইখানা খুলে শুধু ব্যবসা করে, এখানে আর মানুষ বাঁচবে না। আমার ভাইকে বাঁচাতে পারলো না, অথচ তারা শুধু ব্যবসাটাই করলো।’

এ প্রসঙ্গে পার্কভিউ হাসপাতালের মহাব্যবস্থাপক মো. জিয়া ইঞ্জিনিয়ার্স নিউজকে বলেন, ‘মো. সেলিম নামের ব্যক্তিটি গত ৪ তারিখ (জুলাই) থেকে গত ১৭ তারিখ (জুলাই) পর্যন্ত এইচডিইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন। উনাকে হাই ফ্লো অক্সিজেন সাপোর্ট দেয়া হয়েছে। এছাড়া বিলে কোনো ধরনের অসংগতি নেই। পরিবারটিও আর্থিকভাবে অস্বচ্ছল নয়। তবু চিকিৎসাধীন ব্যক্তির মৃত্যুর কারণে আমরা তাদের বিলে প্রায় দেড় লাখ টাকা ডিসকাউন্ট করেছি। তবু তারা কেন ফেসবুকসহ নানা জায়গায় এসব নিয়ে অভিযোগ করছে তা বুঝতে পারছি না।’

মৃত মো. সেলিমের বিলের অভিযোগ ও পার্কভিউ হাসপাতালের বক্তব্য নিয়ে কথা বলা হয় চট্টগ্রাম জেলা সিভিল সার্জন ডা. শেখ ফজলে রাব্বির সাথে। তিনি ইঞ্জিনিয়ার্স নিউজকে বলেন, ‌‘কারো যদি বিল নিয়ে কোনো প্রকার অসঙ্গতি থাকে, তাহলে তারা সিভিল সার্জন অফিস ও স্বাস্থ্য পরিচালকের অফিসে যোগাযোগ করতে পারেন। কেননা আমরা হাসপাতালগুলোতে চিকিৎসা করতে কোন কাজে কত ফি নিবে তা নির্ধারণ করে দিয়েছি। এর বেশি ফি যদি কেউ নেয়, তাহলে আমরা তা তদন্ত স্বাপেক্ষে ব্যবস্থা নিতে পারবো।’


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com