Logo
শিরেোনাম ::
করোনা রোগীদের অক্সিজেন সিলিন্ডার দিলেন রাজশাহী মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ডাঃসবুজ মানবাধিকার ফাউন্ডেশন ট্রাস্ট অব বাংলাদেশ সিলেট বিভাগীয় কমিটি গঠ কুমিল্লা চৌদ্দগ্রামে ভেজাল বিটুমিন তৈরি কারখানায় অভিযান মালিক সহ ২জনকে কারাদন্ড এ্যাডভোকেট এ এম মোয়াজ্জেম হোসেন’র মৃত্যু বার্ষিকীতে বঙ্গবন্ধু আইন ছাত্র পরিষদের শ্রদ্ধা নিবেদন পটিয়া জিরি ইউনিয়নে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় পরিবারের পাশে কেন্দ্রীয় নেতা বদিউল আলম প্লাস্টিক বর্জ্য সামুদ্রিক ও জলজ জীবনের সবচেয়ে বড় হুমকি কুমিল্লা চৌদ্দগ্রাম উপজেলার কাশিনগর বাজারে নিরাপত্তার স্বার্থে সিসি ক্যামেরা উদ্বোধন কবিতাঃ “একটি স্বচ্ছ হৃদয়” ডুয়েট উপাচার্যের সাথে ‘করিমগঞ্জ প্রতিবন্ধী স্কুল’ এর প্রতিনিধিবৃন্দের সৌজন্য সাক্ষাৎ ‘করিমগঞ্জ প্রতিবন্ধী স্কুল’ এর পক্ষ থেকে ডুয়েট উপাচার্যকে মাস্ক উপহার

করোনাভাইরাস লকডাউন, একঘেয়েমি কাটাবো কীভাবে? লেখকঃ ইয়াসিন আরাফাত

রিপোর্টারের নাম / ৩২৫ বার
আপডেট সময় : শুক্রবার, ১৯ জুন, ২০২০

করোনাভাইরাস লকডাউন, একঘেয়েমি কাটাবো কীভাবে?
লেখকঃ ইয়াসিন আরাফাত

একঘেয়েমি একটা মানসিক ব্যাপার, অস্তিত্বমূলক নয়। যদি আপনার মাথার মধ্যে ফালতু জিনিসপত্র ঘুরতে থাকে, আপনার একঘেয়ে লাগবে। আপনি যদি এখানে বসে চমৎকার সব বিষয়ে ভাবেন, আপনি চনমনে হয়ে উঠবেন। আপনার মাথার মধ্যে কি ঘটছে সেটা আপনার নাটক। আপনি যদি নিজেই নিজের নাটকে বিষাদগ্রস্ত হয়ে পড়েন, কল্পনা করতে পারছেন -যাঁরা আপনার সাথে এই কয়েক মাসের জন্য আটকে পড়েছেন তাঁদের দশা/ অবস্থা কি হচ্ছে? আগে নানান রকমের বিনোদন ছিল যাকে আমরা কাজ, শপিং আর অন্যান্য সামাজিক দায়িত্ব বলে থাকি। এখন লোকজন আপনার নাটকের সাথে আটকে পড়েছেন।

প্রতি দশ মিনিটে একটা দু-মিনিটের বিরতি নিন এর থেকে; এতে করে আপনি নিজের সাথে ভারী চমৎকার কিছু করবেন।

সমস্ত টেলিভিশন চ্যানেল কিছু মিনিটের ব্যবধানে একটা বাণিজ্যিক বিরতি নেয়। আমি জানি আপনি আপনার নাটক বন্ধ করতে পারবেন না, কিন্তু এটুকু অন্তত করুন আপনার নাটকের সাথে; প্রতি দশ মিনিটে একটা দু-মিনিটের বিরতি নিন, এতে করে আপনি নিজের সাথে ভারী চমৎকার কিছু করবেন।

কি করবেন যখন আপনার একঘেয়ে লাগছে?

আমি যদি আপনাকে কিছু একটা করতে বলি, আপনি জিজ্ঞেস করতে পারেন, “কিভাবে (করব)?” কিন্তু আমি যদি বলি “কিচ্ছু করবেন না”, আর আপনি জিজ্ঞেস করেন, “কিভাবে কিচ্ছু না করব?” তখন আমরা কি করি? কিচ্ছু না মানে কোন কিছু নয়, কাজেই এটা সেভাবে শেখানো যায় না। কিছুই নয় মানে, কিছুই নয়। সেটা কিভাবে শেখানো যায়? কিচ্ছু না করা মানে হল আপনার চারপাশে যা কিছু ঘটছে তার থেকে আপনি নিজের জড়িত থাকাকে প্রত্যাহার করছেন, আপনি ওতে আর লিপ্ত নন। আপনার শারীরিক ও মানসিক সক্রিয়তাও এর মধ্যে পড়ে, কারণ এই দুটোই আপনি সংগ্রহ করেছেন বাইরে থেকে।

এরকম ভাববেন না যে আপনার কাছে জীবন অথবা মানুষজন একঘেয়ে হয়ে গেছে – আপনার কেবল নিজের চিন্তাগুলো একঘেয়ে লাগছে , যা আপনার মধ্যে ঘটে চলেছে;

আপনার শরীর যা বলে বলুক – আপনি চুপ করে বসুন। আপনার মন যা বলছে বলুক কিন্তু আপনি বসে থাকুন, ওতে জড়িয়ে না পড়ে। কোনো নির্দিষ্ট ভাবনার পেছনে ছুটবেন না যা আপনি মনে করেন ভালো, তেমনি যেটা খারাপ মনে করেন সেটাকে এড়িয়ে যাওয়ারও চেষ্টা করবেন না। আবার এটাও ভাববেন না যে এই সময়টাকে দারুণভাবে ব্যবহার করবেন আর মন কে অতিরিক্ত কাজ করাবেন। আপনি সম্পূর্ণ নতুন এক সম্ভাবনাকে কোনভাবেই ভেবে উদ্ভাবন করতে পারবেন না; চিন্তা করে আপনি কেবল যা ইতিমধ্যেই আছে তার উন্নতিসাধন করতে পারেন । জীবনের নতুন মাত্রাগুলো আপনার দৃষ্টিগোচর হয় আপনি খুঁজছেন বলে নয় – যা আপনি জানেনই না, সেটা আপনি খুঁজবেন কিভাবে? কেবলমাত্র এই যে আপনি যদি নিজের বর্তমান পরিস্থিতিতে ডুবে না থাকেন , নতুন সম্ভাবনাগুলো দেখা দেয়। সেগুলো সবসময়ই আছে, কিন্তু তারা এখন দৃষ্টিগোচর নয় কারণ আপনি আপনার অতীত ও বর্তমান পরিস্থিতিতে সম্পূর্ণ নিমজ্জিত। দশ বছর আগে যা ঘটেছিল, সেগুলো এখনো আপনার মাথায় ভোঁ ভোঁ করছে। আপনার এইসব তামাশা করা সাজত যদি আপনার আয়ু দশ লক্ষ বছর হোতো। কিন্তু আপনি যদি পূর্ণ জীবনও বাঁচেন তাও এটা খুবই স্বল্পস্থায়ী জীবন। আর এখন তো এই ভাইরাস আপনাকে চৌদ্দ দিনে শেষ করার হুমকি দিচ্ছে, যদি আপনি যত্ন না নেন।

যখন একঘেয়েমি হানা দেয়, মনোযোগ দিন!

আপনার চারপাশে এক খুবই বিস্ময়কর রকমের সূক্ষ্ম ও জটিল সৃষ্টি ছড়িয়ে রয়েছে। এর মধ্যে, আপনার একঘেয়ে লাগছে? এ তো অবিশ্বাস্য! আপনি যদি একটা পাতার দিকে মনোযোগ দেন, আপনি তার দিকে তাকিয়ে বছরের পর বছর কাটিয়ে দিতে পারবেন কারণ এটা এতো নিগূঢ় আর সূক্ষ্ম। পিঁপড়েরা আছে, পোকা, পাখি, জন্তুরা আছে – একটা গোটা ঘটমান জীবন – আর আকাশের এই সুবিশালতা। আপনি যদি যেগুলো অস্তিত্বগত দিক দিয়ে সত্যি সেই মাত্রাগুলোর সাথে লিপ্ত হোন, একঘেয়েমির কোনো জায়গাই নেই কারণ এটা বড় বেশি চমৎকার বিস্ময়। যেহেতু আপনি শুধুমাত্র আপনার মাথার মধ্যে ঘটতে থাকা তুচ্ছতায় লিপ্ত , আপনার একঘেয়ে লাগছে। এরকম ভাববেন না যে আপনার জীবন অথবা মানুষজন একঘেয়ে লাগছে – আপনার শুধু নিজের চিন্তাগুলো একঘেয়ে লাগছে, যা আপনার মধ্যে ঘটে চলেছে; আপনি জানেনও না আপনার চারপাশে কি ঘটছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com