Logo
শিরেোনাম ::
রাজশাহীর তানোরে আমন ধানের চারা রোপনে ব্যাস্ত চাষীরা রাজশাহীতে নির্মাণ করা হচ্ছে শেখ রাসেল শিশুপার্ক কঠোর লকডাউন অমান্য করে অবৈধ মেলা- ১ লাখ টাকা জরিমানা লালমাইয়ে ভুল চিকিৎসায় নারীর গর্ভপাত বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক হচ্ছে মৌলভীবাজার জেলার জুড়ী উপজেলায় সংসদ সদস্য জনাব শাহে আলম এর জন্মদিন উপলক্ষে ছাত্রলীগের দোয়া মাহফিল স্বাস্থ্যবিধি মেনে “প্রবাসী সমাজ কল্যাণ তহবিল” এর ঈদ সামগ্রী বিতরণ জৈন্তাপুর, গোয়াইনঘাট ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা বাসীকে ঈদ-উল-আযহার শুভেচ্ছা জানান এড. মাহফুজুর রহমান মোঃ নাসির উদ্দিনের পক্ষ থেকে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের কাছে ৭০০০ মাক্স উপহার গোমস্তাপুরে জিনিয়াস ওয়েলফেয়ার এ্যাসোসিয়েশন এর আয়োজনে করোনা টিকা রেজিস্ট্রেশনের ফ্রি ক্যাম্পেইন

পুঠিয়ায় জমে উঠেছে আমের হাট, মহাসড়কে যানজোটে জনদুর্ভোগ

মোঃ বাপ্পী রহমান / ১৭১ বার
আপডেট সময় : সোমবার, ১৫ জুন, ২০২০

রাজশাহী প্রতিনিধি : আম ও লিচুসহ অন্যান্য ফলের ভরা মৌসুম। রয়েছে স্বাদে অনন্য দেশসেরা রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলার আম । সবচেয়ে বড় আমের মোকাম পুঠিয়া উপজেলার বানেশ্বর হাট। বৈচিত্র্যময় এ দিনে জমে উঠেছে রাজশাহীর আমের বাজার ও আড়তগুলো। জেলা প্রশাসন থেকে নির্দেশনার পর ১৫ মে থেকে আম পাড়া শুরু হয়েছে। এ হাটের আশপাশের সড়কগুলোর যেদিকে চোখ যাবে চোখে পড়বে আম ভর্তি ভ্যান। বাগানের কাঁচা-পাকা আম নিয়ে সব ভ্যানের গন্তব্য এখন বানেশ্বর বাজারে। তাই রাস্তায় সৃষ্টি হচ্ছে ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কে যানজোট এবং যানজোটের কারণে এই গরমে বাসের যাত্রীদের পোহাতে হচ্ছে দুর্ভোগ।

সোমবার দুপুরে হাটে গিয়ে দেখা গেল, বাজারে উঠতে শুরু করেছে সব জাতেরই আম । ১৫ জুন থেকে আম্রুপালি ও ফজলি আম পাড়া শুরু এবং আশ্বীনা ১০ জুলায় থেকে পাড়া শুরু হবে বলে জেলা প্রশাসকের নির্দেশনা রয়েছে।

বানেশ্বর বাজারে খোলা আকাশের নিচে ভ্যানের ওপর সাজিয়ে আম বিক্রি করছেন আম চাষী ও ব্যবসায়ীরা। করোনা ভাইরাসের কারণে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে তেমন পাইকারি ব্যবসায়ীরা আসেনি । এখন শুধু বিভিন্ন এলাকার কিছু ব্যবসায়ী স্থানীয় আড়তদার ও সাধারণ ক্রেতারা কিনছেন আম। করোনার কারণে বানেশ্বরে আম কিনতে লোকজন না আসতে পারলেও অনলাইন ও কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে শতশত মণ আম যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন স্থানে।

আবু সায়েদ নামে এক আড়তদার জানান, বাইরের তেমন কোন পাঠি আসেনি আমরাই কিনে ঢাকায় আম দিচ্ছি। করোনার কারণে দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে বেশিসংক্ষক ব্যবসায়ীরা এখানে এসে আম কিনছে না। বর্তমানে গোপালভোগ জাতের আম ২৭শ থেকে ৩শ টাকা মণ, লোকনা ৭শ থেকে ১১শ টাকা, হিমসাগর ২হাজার চারশত থেকে ৩ হাজার টাকা, ল্যাংড়া ১৫শ থেকে ১৮শ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। আর গুটি জাতের আমের দাম প্রতি মণ ৭শ থেকে ৯শ’ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

পুঠিয়া উপজেলা কৃষি অফিসার শামসুন নাহার ভূইয়া জানান, আমরা নিয়মিত বানেশ্বর আমের হাট পরির্দশন করছি এবং উপজেলা প্রশাসন সবসময় আমাদের সহযোগিতা করছে। করোনার জন্য দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে আসা ব্যবসায়ীদের থাকার জন্য হোটেল মালিকদের এবং আড়তদারদের সাথে কথা বলে সব ব্যবস্থা করেছি। পুঠিয়া কৃষি অফিস সবসময় আমের হাট মনিটরিং করছে ।

তিনি আরও জানান, উপজেলায় এবার আমের উৎপাদন এরিয়া প্রায় ১৫২৭ হেক্টর এবং লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছে ১৮,৩২৪ মে. টন। যা গতবছর ছিল ১৮,৩০০ মে.টন এবং বাগান ছিল প্রায় ১৫২৫ হে. এরিয়ায়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com