Logo
শিরেোনাম ::
প্লাস্টিক বর্জ্য সামুদ্রিক ও জলজ জীবনের সবচেয়ে বড় হুমকি কুমিল্লা চৌদ্দগ্রাম উপজেলার কাশিনগর বাজারে নিরাপত্তার স্বার্থে সিসি ক্যামেরা উদ্বোধন কবিতাঃ “একটি স্বচ্ছ হৃদয়” ডুয়েট উপাচার্যের সাথে ‘করিমগঞ্জ প্রতিবন্ধী স্কুল’ এর প্রতিনিধিবৃন্দের সৌজন্য সাক্ষাৎ ‘করিমগঞ্জ প্রতিবন্ধী স্কুল’ এর পক্ষ থেকে ডুয়েট উপাচার্যকে মাস্ক উপহার কুমিল্লা চৌদ্দগ্রামে আন্তঃজেলা গ্রিলকাটা চক্রের ৬ সদস্য গ্রেফতার । মুক্তিযোদ্ধাদের লাঞ্ছিতকারীরা আওয়ামী লীগে অনুপ্রবেশকারী-বীর মুক্তিযোদ্ধা সামশুদ্দীন আহমদ পরিবেশ দিবস উপলক্ষে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির আয়োজন করেছে ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় ভলেন্টিয়ার সার্ভিস ক্লাব ক্লাস-পরীক্ষার দাবিতে সিলেট টেকনিক্যাল স্কুল ও কলেজ শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন। বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্য দিয়ে ছাত্রলীগ নেতা রনি হকের জন্মদিন পালিত

রাজশাহীতে জ্বর-শ্বাসকষ্টে মারা যাওয়ায় লাশ দাফনে বাধা

মোঃ বাপ্পী রহমান / ৭০ বার
আপডেট সময় : শুক্রবার, ১২ জুন, ২০২০

রাজশাহী জেলা প্রতিনিধি : করোনার উপসর্গ জ্বর, শ্বাসকষ্ট নিয়ে মারা যাওয়ায় রাজশাহীর চারঘাটে এক ব্যক্তির লাশ দাফনে বাধা দিয়েছেন স্থানীয় লোকজন। পরে পুলিশের সহায়তায় বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দুইটার দিকে ওই ব্যক্তির লাশ দাফন করা হয়।

মৃত ব্যক্তির (৫৫) বাসা ঢাকার মহাখালীতে। তিনি নাটোরের সিংড়ায় তাঁর ভায়রার বাড়িতে বেড়াতে এসে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। তখন তাঁকে সিংড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানেই বিকেল সাড়ে চারটার দিকে তাঁর মৃত্যু হয়।

চারঘাট থানার কর্তব্যরত পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) ইকবাল হোসেন জানান, ওই ব্যক্তি ধর্মান্তরিত হয়ে চারঘাটে এক মুসলিম পরিবারে বিয়ে করেছিলেন। এ জন্য সিংড়া থেকে লাশ তাঁর শ্বশুরবাড়ি চারঘাটে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। চারঘাট উপজেলার সদরে বাবুপাড়া কবরস্থানে তাঁর লাশ দাফনের জন্য কবর খোঁড়া হয়েছিল। বিষয়টি জানতে পেরে স্থানীয় লোকজন লাশ দাফনে বাধা দেন। খবর পেয়ে রাতে পুলিশ গিয়ে মানুষকে বুঝিয়ে লাশ দাফনের ব্যবস্থা করেন।

চারঘাট থানার ওসি সমিত কুমার কুণ্ডু বলেন, করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে মৃত্যুর কারণে স্থানীয় লোকজন লাশ দাফনের ব্যাপারে আপত্তি তুলেছিলেন। তাঁরা বলছিলেন, এখানে তাঁর শ্বশুরবাড়ি। তাঁর নিজের বাড়িতে নিয়ে গিয়ে দাফন করা হোক। পরে তাঁদের বুঝিয়ে বলা হয়, তাঁর আত্মীয়স্বজন কেউ দেশে থাকেন না। তাঁরা সবাই ইউরোপ-আমেরিকায় থাকেন। সেখানে তো আর লাশ পাঠানো সম্ভব নয়। বোঝানোর পরে সবাই মেনে নেন। লাশ দাফন করতে প্রায় রাত দুইটা বেজে যায়।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com