Logo
শিরেোনাম ::
‘পাইলট ট্রেনিং-৬ এয়ারক্রাফট’ স্থাপন করলো ড্যাফোডিল বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রাম মহানগর সেচ্ছাসেবকলীগ নেতা নাসির উদ্দিন নাসিরের বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি বাবা দিবসে বীর মুক্তিযোদ্ধা বাবার কাছে কন্যার খোলা চিঠি শাহজাদপুরে কোটি টাকায় ২ কিলো রাস্তায় মাটি ভরাট -১৫ হাজার মানুষের চলাচলে চরম দূর্ভোগ করোনা রোগীদের অক্সিজেন সিলিন্ডার দিলেন রাজশাহী মহানগর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ডাঃসবুজ মানবাধিকার ফাউন্ডেশন ট্রাস্ট অব বাংলাদেশ সিলেট বিভাগীয় কমিটি গঠ কুমিল্লা চৌদ্দগ্রামে ভেজাল বিটুমিন তৈরি কারখানায় অভিযান মালিক সহ ২জনকে কারাদন্ড এ্যাডভোকেট এ এম মোয়াজ্জেম হোসেন’র মৃত্যু বার্ষিকীতে বঙ্গবন্ধু আইন ছাত্র পরিষদের শ্রদ্ধা নিবেদন পটিয়া জিরি ইউনিয়নে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত অসহায় পরিবারের পাশে কেন্দ্রীয় নেতা বদিউল আলম প্লাস্টিক বর্জ্য সামুদ্রিক ও জলজ জীবনের সবচেয়ে বড় হুমকি

১ বছরেও জ্ঞান ফেরেনি সেই ছাত্রীর, অবস্থা সংকটাপন্ন

শেখ আব্দুর রহিম, বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধি / ৫৯৭ বার
আপডেট সময় : শুক্রবার, ২৯ মে, ২০২০

বশেমুরবিপ্রবি প্রতিনিধিঃ ভুল ইনজেকশনে অজ্ঞান বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরবিপ্রবি) শিক্ষার্থী মরিয়ম সুলতানা মুন্নির দীর্ঘ এক মাসেও জ্ঞান ফেরেনি। গত বছরের ২১ মে গোপালগঞ্জের জেনারেল হাসপাতালে কিডনিজনিত সমস্যার চিকিৎসা নিতে যান মুন্নি। এসময় নার্স ভুল ইনজেকশন দিলে সে জ্ঞান হারায়। মুন্নির জ্ঞান হারানোর বিষয়টি জানার পরও কর্তব্যরত ডাক্তার তপন তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা না নেয়ার অভিযোগ স্বজনদের।
অবস্থা ক্রমান্বয়ে খারাপ হতে থাকলে মুন্নিকে তড়িৎ খুলনার শেখ আবু নাসের হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়।
সেখানে মুন্নির অবস্থা অপরিবর্তিত থাকলে একদিন পর কর্তব্যরত চিকিৎসকের পরামর্শে ২২ মে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করা হয়। কিন্তু সেখানে দীর্ঘ ৩ মাস নানা চেষ্টার পরেও ফিরে আসেনি মুন্নীর জীবনের স্বাভাবিক গতি। ফলে বাধ্য হয়ে বাড়িতে নিয়ে আসা হয় তাকে।
মুন্নীর সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে তার ভাই হাসিবুল রুবেল বলেন, এক বছর পার হয়ে গেলেও মুন্নী এখনো সুস্থ হয়ে ওঠেনি। চোখ খুলে তাকালেও পরিবারের কাউকে চিনতে পারে না, কোনো কথা বলতে পারে না, চলাফেরা করতে পারে না। তার অবস্থার ক্রমান্বয়ে অবনতি হচ্ছে । আপাতত ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী শুধু খিচুনি বন্ধের ওষুধ দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া আমার বোনের আর কোনো চিকিৎসা চলছে না।
এই ঘটনায় মুন্নির পরিবার গোপালগঞ্জের জেনারেল হাসপাতালের ডাঃ তপন, নার্স শাহনাজ ও কোহেলীকাকে আসামী করে সদর থানায় মামলা করেছেন।
আসামীরা হাইকোর্ট থেকে জামিন নিয়েছেন বলে জানান সদর থানার এস আই মুকুল।
মরিয়ম সুলতানা মুন্নি বশেমুরবিপ্রবির সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের ২য় বর্ষের শিক্ষার্থী ।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com