Logo
শিরেোনাম ::
ঢাকা বিভাগের শ্রেষ্ঠ রোভাররের অ্যাওয়ার্ড পেলেন বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষার্থী হৃদয় শ্রীমঙ্গলে পৌর নির্বাচনে নৌকার মাঝি অধ্যক্ষ সৈয়দ মনসুরুল হক শহীদ শেখ রাসেলের জন্মদিনে রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের আলোচনা সভা ও দোয়া গাউছিয়া অটো রাইচ মিল মালিকের পক্ষ থেকে পটিয়া মুন্সেফ বাজারে পণ্য বিক্রয় কেন্দ্রের শুভ উদ্বোধন গরীব,দুস্থ ও জেলেদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করলেন প্রকৌশলী মোহাম্মদ হোসাইন বিশ্বসেরা গবেষকদের তালিকায় ডুয়েটের ১৯ শিক্ষক বিশ্বসেরা গবেষকদের তালিকায় পবিপ্রবির ২৩ শিক্ষক তানোর উপজেলা বাসীকে শারদীয় দূর্গা পূজার আগাম শুভেচ্ছা জানিয়েছেন যুবলীগ নেতা মঈনুদ্দীন সোনার বাংলা সমাজকল্যাণ সংস্থার নতুন সভাপতি মোঃ আবুল হোসাইন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ কামরুল হাসান শ্রীমঙ্গলে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী ভানুর জয়

নতুন মাছের পোনায় হারানো যৌবন ফিরে পেল হালদা

মো:আব্দুল্লাহ টিপু / ১২০ বার
আপডেট সময় : শনিবার, ২৩ মে, ২০২০

হাটহাজারী  উপজেলা প্রতিনিধিঃ দেশের একমাত্র প্রাকৃতিক মৎস্য প্রজনন ক্ষেত্র চট্টগ্রামের হালদা নদী।এই নদীতে বর্ষার মৌসুমে ভারী বর্ষণ ও বজ্রপাতের সময় ডিম ছাড়ে কার্প জাতীয় মা মাছ।এবারও তার ব্যতিক্রম নয়।

বিভিন্ন নদী থেকে কার্প জাতীয় মা মাছগুলো চলতি সময়ে হালদায় এসে ডিম ছাড়ে আর এরই ধারাবাহিকতায় হালদার ডিম সংগ্রহকারীরা রেকর্ড পরিমাণ ডিম সংগ্রহ করেছেন। এবার রেকর্ড সংখ্যক ডিম আহরণে আহরণকারী থেকে শুরু করে সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন হালদা তার হারানো যৌবন ফিরে পেয়েছে।

জানা যায়, কয়েকদিন আগে নমুনা ডিম ছাড়ার পর থেকেই হালদা পাড়ের ডিম সংগ্রহকারিরা প্রস্তুতি নিতে থাকে ডিম আহরণের। বৃহস্পতিবার রাতে মা মাছ ফের নমুনা ডিম ছাড়লে নদীর দুপাড়ে শুরু হয় আহরণকারীদের অপেক্ষা। হালদা নদীর গড়দুয়ারা থেকে শুরু করে মার্দাশা পর্যন্ত বিভিন্ন জায়গায় অপেক্ষায় থাকে হালদা পাড়ের প্রায় ৬১৫জন ডিম সংগ্রহকারী।

শুক্রবার সকালে ২৮০টি নৌকা দিয়ে শুরু হয় ডিম আহরণ। এতে একেক জন ডিম সংগ্রহকারী ৩০ থেকে ৫০ কেজি পর্যন্ত ডিম আহরণ করে। সব মিলিয়ে রেকর্ড করা এবার হালদা থেকে আহরণ করা ডিম এর পরিমাণ ২৫ হাজার কেজি।যা আগের ১০ বছরের সংগ্রহের পরিমাণ থেকে বেশি।

হালদাকে আগের রূপে ফেরাতে উপজেলা প্রশাসন কতৃক উপজেলা নির্বাহী অফিসার রুহুল আমিন বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। রেলের বগির তেল হালদায় যেতে না দেওয়া ,এশিয়ান পেপার মিল বন্ধ করা সহ দিনের পর দিন মাছ শিকারিদের দৌড়ের উপর রাখা না হত তাহলে এই ডিম আহরণ সম্ভব হত না।

গত এক বছরে হালদার মা মাছ রক্ষা করতে বেশ কয়েকটি মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেছেন তিনি। ধ্বংস করেছেন ড্রেজার, ঘেরা জাল, বালু উত্তোলনের কাজে ব্যবহার করা পাইপ ও নৌকা। প্রশাসনের নিখু্ঁত অভিযানে হালদা পুরনো রূপ ফিরে পাচ্ছে।

এব্যাপারে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন , হালদা নদী থেকে সংগ্রহ করা কার্প জাতীয় মাছের ডিম দিয়ে এক সময় চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন এলাকার মাছ চাষিদের পোনার চাহিদা পূরণ করতো হালদা নদী। কিন্তু গত কয়েক দশক ধরে দুষণ ও আগ্রাসনের কবলে পড়ে হালদা তার ঐতিহ্য হারাতে যাচ্ছিল। হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ রুহুল আমিনের দিন রাত অক্লান্ত পরিশ্রমে হালদা নদী আবারো তার হারানো রূপ ফিরে পেয়েছে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com
P