Logo
শিরেোনাম ::
রাজশাহীর তানোরে আমন ধানের চারা রোপনে ব্যাস্ত চাষীরা রাজশাহীতে নির্মাণ করা হচ্ছে শেখ রাসেল শিশুপার্ক কঠোর লকডাউন অমান্য করে অবৈধ মেলা- ১ লাখ টাকা জরিমানা লালমাইয়ে ভুল চিকিৎসায় নারীর গর্ভপাত বঙ্গবন্ধু সাফারি পার্ক হচ্ছে মৌলভীবাজার জেলার জুড়ী উপজেলায় সংসদ সদস্য জনাব শাহে আলম এর জন্মদিন উপলক্ষে ছাত্রলীগের দোয়া মাহফিল স্বাস্থ্যবিধি মেনে “প্রবাসী সমাজ কল্যাণ তহবিল” এর ঈদ সামগ্রী বিতরণ জৈন্তাপুর, গোয়াইনঘাট ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা বাসীকে ঈদ-উল-আযহার শুভেচ্ছা জানান এড. মাহফুজুর রহমান মোঃ নাসির উদ্দিনের পক্ষ থেকে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের কাছে ৭০০০ মাক্স উপহার গোমস্তাপুরে জিনিয়াস ওয়েলফেয়ার এ্যাসোসিয়েশন এর আয়োজনে করোনা টিকা রেজিস্ট্রেশনের ফ্রি ক্যাম্পেইন

জয়পুরহাটের আক্কেলপুরে লকডাউন মানছেনা গ্রামাঞ্চলের মানুষ

আল আমিন আল বোখারী / ২২৯ বার
আপডেট সময় : মঙ্গলবার, ১৯ মে, ২০২০

জয়পুরহাট প্রতিনিধিঃ সারা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতি কোভিড-১৯ এর দুর্বিপাকে সারা বিশ্ব। সেই করোনা ভাইরাসকে প্রতিরোধ করতে বিশেষ প্রয়োাজন ছাড়া লোকজনকে বাড়ির বাহিরে না যাওয়ার জন্য সরকারী ভাবে বিজ্ঞপ্তী জারি হলেও গ্রামের লোকজন এর অনেকটাই মানছেন না।

গ্রামের লোকজনের চলাচল অনেকটা পুর্বের মতো। এদের মধ্যে কোভিড-১৯ বিষয়ে কোন চিন্তা ভাবনা তাদের মধ্যে এখনও সে ভাবে কাজ করছে না।
করোনা ভাইরাসের সংক্রমন শহর বন্দরের তুলনায় গ্রামে বেশি ছড়িয়ে পড়ার আশংখ্যা বেশি। মাঠঘাট হাট বাজার সহ গ্রামের রাস্তার মোড়ের দোকান সমুহে লক্ষনীয় লোকজনের উপস্থিতি। শহরের লোকজনের কিছুটা কোভিড-১৯ বিষয়ে সাবধান হলেও অনেকটা সচেতনতা নাই গ্রামের লোকজনেরা। গ্রামে বসবাসরত লোকদের বাড়িতে এখনও স্থানীয় আত্বীয় স্বজনদের যাতায়াত অব্যাহত।
প্রশাসনের লোকজনের টহলী দলের উপস্থিতি টের পাওয়ার সাথে সাথে গ্রামের জমায়েত লোকজন আত্মগোপনে যাচ্ছেন। তারা পরিস্থিতি ভাল মনে করে সরে যাবার সাথে সাথে পুর্বাবস্থা বিরাজমান। সরেজমিনে তিলকপুর বাজার এবং মহনপুর বাজার পরিদর্শন করে দেখা যায় লোকজন অযথা বাজারে ঘোরাফেরা করছে এবং স্থানীয় স্কুল বিল্ডিং এর ছাদে বসে লুডু সহ অন্যান্য খেলাধুলা করে সময় ব্যায় করছে। মাঝে মধ্যে ধরা পড়ে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে কিছু ব্যবসায়ী সহ আইন লঙ্ঘনকারীদের বিরুদ্ধে দন্ড জরিমানা আদায় করাও অব্যাহত রয়েছে।দিন মজুর শ্রমজীবি ও অসহায় কর্মহীন মানুষের জন্য সরকারী বা বে-সরকারী ভাবে সাহায্য দেয়া হলেও মানুষকে ঘড়ে আটকানো সম্ভব হচ্ছে না।
সকাল হলেই এক শ্রেণির লোকজন সাহয্য সহযোগিতা নেয়ার উদ্দেশ্য কখনো উপজেলা নির্বাহী অফিসারের দফতর, উপজেলা চেয়ারম্যান, পৌর মেয়র, বিত্তবান, ব্যবসায়ীদের কাছে খাদ্যভাবের কথা বলে বাড়তি ফায়দা হাসিলের চেষ্টাও অব্যাহত রেখেছেন। এতে অপ্রয়োজনে লোক চলাচল বেড়ে চলেছে আক্কেলপুর উপজেলার হাটবাজার ও গ্রামগঞ্জে। এ শ্রেণির লোক জন কোন সময় সচেতনতার ধার ধারেন না। তারা একটাই বোঝেন কেমনে কিছু হাতানো যাবে অন্যর কাছ থেকে।এদের কাছে আবার কোন নেতা জনপ্রতিনিধি কেহ ভাল না। যার সামনে যাবেন সে সবার চেয়ে ভাল।
শুধু উপজেলার বিভিন্ন হাট বাজার ঘুরে দেখা গেছে,আগের মতো গ্রামের লোকজন বাহিরে ঘোরাফেরা অব্যাহত রেখেছেন। গ্রামের হাট-বাাজর -মাট- ঘাট বড় বড় রাস্তার মোড়ের দোকানপাটে জমজমাট লোকজনের উপস্থিতি। এ সব আড্ডায় করোনা ভাইরাসের সংক্রমনে কোন দেশে কত জন মারা গেল, কতজন আক্রান্ত হলো. কোন দেশ কি ব্যবস্তা নিচ্ছে সে নিয়েও আলোচনা সমালোচনার শেষ নেই । তারা যত আলোচনা সমালোচনা করুক তাদের মাঝে প্রাণঘাতি করোনা ভাইরাস বিষয়ে ততটা নেই মাথা ব্যথা ও সচেতনতা। গ্রামে গ্রামে পুর্বে যারা ভিক্ষাবৃত্তি করত আজও তারা ভিক্ষা করছে। বন্ধ হয়নি তাদের ভিক্ষাবৃত্তি। অথচ সরকার তাদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ১০ কেজি করে খাবার চাল,আটা,ডাল আলু,তেল, পিঁয়াজ সাবান পৌঁছে দেয়ার ঘোষনা করেছেন। আসলে ভিক্ষুকরা সবটুকু ঠিকমতো পেয়েছেন কি না তা অজানা। ভিক্ষুকদের সাথে কথা বললে তারা বলেন সরকারী চাল আটা পেয়েছি আবার কয়েক জন বললেন কোন কিছু পাইনি। আবার অনেকে বললেন চাল আটা পেলে কি হবে? কিন্তু সে গুলো কি দিয়ে রান্না করে খাব। তেল নুন বা অন্য কিছু না থাকায় ভিক্ষা করতে বেরিয়েছি।
হাট বাজারের ক্ষেত্রে কাঁচা মালামাল কেনাবেচা বেলা ২টা পর্যন্ত অব্যাত রয়েছে। এ সব কেনা বেচায় লোক সমাগম ঘটে হাজার হাজার মানুষের। সরকারী ভাবে বলা আছে তবে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে কেনাবেচা করতে হবে। এ বিষয়ে স্থানীয় পৌর সভা ও ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানগণ, হাট ইজারাদারগণ সকল ব্যবস্থা গ্রহণের কথা থাকলেও তা বাস্তবায়িত হচ্ছে না।
এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ জাকিউল ইসলাম বলেছেন, বিক্রয়যোগ্য কাঁচা মালামাল,সহ সকল দোকানেও সামাজিক দুরুত্ব বজায় রাখতে হবে। কাঁচা মালের ক্ষেত্রে অনেক জায়গার প্রয়োজন হয় সে লক্ষে হাট ইজারাদার ও জনপ্রতিনিধিদের নির্দ্দেশ দেয়া হয়েছে। প্রয়োজেনে তারা পার্শ্ববর্তী বিদ্যালয় ও খেলার মাঠে সামাজিক দুরত্বের হাট বসানোর নির্দ্দেশ ও সে বিষয়ে সার্বক্ষণিক তদারকি ও অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করছেন। তিনি সকলকে সচেতনতার পাশাপশি বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া ঘরের বাইরে  না যাওয়ার জন্য অনুরোধ করেছেন।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com