Logo
শিরেোনাম ::
সিমোশএমসিতে ইন্টার্ন ডক্টরস রিসেপশন সম্পন্ন বশেমুরবিপ্রবি শিক্ষক সমিতির নির্বাচন-২০২২ তানোরে চোলাই মদ ও পলাতক আসামি গ্রেফতার হাজীগঞ্জ শাহরাস্তিতে ইঞ্জিঃ মোহাম্মদ হোসাইনের শীতবস্ত্র বিতরন বটবৃক্ষের উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরন ডুয়েটে অনুষ্ঠিত হলো “শহীদ মোস্তফা এক্সিলেন্স অ্যাওয়ার্ড-২০২১” শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরন করলেন ইঞ্জিঃ মোহাম্মদ হোসাইন পটিয়া উপজেলায় বিভিন্ন এতিমখানার ছাত্রদের মাঝে কেন্দ্রীয় যুবলীগ নেতা বদিউল আলমের শীতবস্ত্র বিতরণ শাহজাদপুর প্রিমিয়ার লীগ সিজন-২ শুরু ফিরিঙ্গী বাজার ওয়ার্ড ছাত্রলীগের উদ্যোগে ছাত্রলীগের ৭৪ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করা হয়েছে

BYFHA আয়োজিত Dengue Fever Eradication Campaign 2021

রিপোর্টারের নাম / ৩৮৭ বার
আপডেট সময় : রবিবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০২১

বর্তমানে দেশে ডেঙ্গু পরিস্থিতি আশঙ্কাজনকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। তারই পরিপ্রেক্ষিতে গত ৪ঠা সেপ্টেম্বর থেকে ৮ই সেপ্টেম্বর পর্যন্ত Bangladesh Youth Fellowship for Health Awareness (BYFHA) কর্তৃক আয়োজিত হয়েছিল ৪ দিন ব্যাপি অনলাইন Dengue Fever Eradication Campaign 2021।

ডেঙ্গু মহামারী নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে সুস্থ জীবন গড়তে জনস্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধি করাই ছিল এই ক্যাম্পেইনের উদ্দেশ্য। ডেঙ্গু জ্বর এর লক্ষণ, প্রতিকার এবং ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়া থেকে প্রতিরোধ করার জন্য করণীয় সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে এই ক্যাম্পেইনে।

ডেঙ্গু মহামারী নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে সুস্থ জীবন গড়তে জনস্বাস্থ্য সচেতনতা বৃদ্ধি করাই এই প্রোগ্রামের উদ্দেশ্য।

Dengue Fever Eradication Campaign এর মূল বিষয়বস্তু ছিল:

•ডেঙ্গু ভাইরাসের বাহক এডিস মশার প্রজননের উৎস সম্পর্কে ধারণা। এডিস মশা নির্মূল করা।ডেঙ্গু জ্বরের লক্ষণ এবং তীব্রতা সম্পর্কে গভীর জ্ঞান প্রদান।

•ডেঙ্গু জ্বর প্রতিরোধে এ কি করণীয় এবং বর্জনীয়। ডেঙ্গু জ্বর সম্পর্কে গণমানুষের আতঙ্ক হ্রাস করা।

•উন্নত এবং স্বাস্থ্যকর জীবনের জন্য ব্যক্তিগত এবং সামাজিক স্বাস্থ্যবিধি গুরুত্ব বৃদ্ধি।

এ ক্যাম্পেইনে অতিথি হিসেবে ছিলেন, ডাঃ রতীন্দ্র নাথ মণ্ডল (মেডিসিন বিশেষজ্ঞ, রংপুর স্পেশালাইজড হাসপাতাল ও প্রতিষ্ঠাতা অফ ডাক্তারখানা)। তিনি বলেন, ডেঙ্গু ভাইরাস চার রকমের হয়ে থাকে। ‘Den-1, Den-2, Den-3 এবং Den-4’ আর এ ভাইরাস গুলো এডিস মশা থেকেই আসে। যদি কোন ভাইরাস বাহিত মশা কাউকে কামড় দেয় তাহলে তার বডিতে উক্ত ভাইরাসের এন্টিবডি তৈরি হয়। সাধারণত জ্বর, মাথা ব্যাথা, চোখে ব্যাথা ও পুরো শরীরে ব্যাথা থাকে যেটা যেকোনো ভাইরাস জ্বর এ সাধারণ লক্ষণ। এর মধ্যে প্রচন্ড মাথা ব্যাথা শরীর ব্যাথা ও চোখের পিছনে ব্যাথা হয়ে থাকে এগুলো ডেঙ্গুর লক্ষ্মণ। অনেক সময় ডেঙ্গু জ্বরকে ব্রেকবোন জ্বর ও বলা হয়।”

ক্যাম্পেইনে আরো অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ইফতেখার আহমেদ সাকিব (মেডিকেল স্টুডেন্ট অফ শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ,ঢাকা ও সাধারণ সহকারী, স্কোরা, বিএমএসএস-বাংলাদেশ।) তিনি বলেন, “ডেঙ্গু কিন্তু চার বার হতে পারে। আর এ চারটি আলাদা ভাইরাস। একবার যদি কারো শরীরে Den 1 ভাইরাসে আক্রান্ত হয় তাহলে এর বিরুদ্ধে যে এন্টিবডি তৈরি হয় সেটি কিন্তু অন্য বাকি তিনটি ভাইরাস থেকে প্রটেকশন দেয় না। আরেকটি কথা হলো কেউ যদি প্রথমে একটা ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত হয় এবং তারপর সে যদি ২য় বা ৩য় বার ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয় তাহলে সে ব্যপারটি খুবই সিরিয়াস হতে পারে।

এবং,ইভেন্ট প্রবন্ধে দেয়া ছিলো,ডেঙ্গু মূলত এডিস মশার কামড়ে হয়ে থাকে। ডেঙ্গুর জীবানুবাহি এই মশা কামড় দেয়ার চার থেকে ছয় দিনের মধ্যে ডেঙ্গু জ্বর হয়ে থাকে।

ক্যাম্পেইনে ডেঙ্গু জ্বরের লক্ষণসমূহ নিয়ে আলোকপাত করা হয় যেমন:

•ডেঙ্গু মূলত এডিস মশার কামড়ে হয়ে থাকে। ডেঙ্গুর জীবানুবাহি এই মশা কামড় দেয়ার চার থেকে ছয় দিনের মধ্যে ডেঙ্গু জ্বর হয়ে থাকে।

•ডেঙ্গু জ্বর সাধারণত খুবই হাই টেম্পারেচারের হয়। এই রোগের বেলায় ১০৩/১০৪/১০৫ ডিগ্রি জ্বর হতে পারে এবং তা ৪/৫ দিন স্থায়ী হতে পারে।

•জ্বরের ফলে মাথা ব্যথা, হাড় ব্যথা, কোমড় ব্যথা তীব্র আকার ধারন করতে পারে।

•ঘামাচির মতো লাল রঙের র‍্যাশ হবে। আর যখন র‍্যাশটাতে চাপ দেয়া হবে তখন সেই জায়গাটা সাদা হয়ে যাবে। আবার কিছুক্ষন পরে লাল র‍্যাশগুলো ফেরত আসবে। এছাড়া গাম-ব্লিডিং হতে পারে মানে দাঁতের মাড়ি দিয়ে রক্ত পড়তে পারে।

চিকিৎসার ব্যাপারেও খেয়াল রাখতে হবে যেহেতু এটি ভাইরাস জ্বর সুতরাং এর কিন্তু কোনো নির্দিষ্ট চিকিৎসা নেই। এই জ্বর হলে মানুষ,রেস্টে থাকবে ; জ্বরের জন্য প্যারাসিট্যামল খাবে ; প্রচুর পানি, সরবত ও ডাবের পানি, পেঁপে, ডালিম, হলুদ, কমলা, পালংশাক খেতে হবে ; তৈলাক্ত ও ভাজা খাবার, মসলাযুক্ত খাবার এবং কার্বনেটেড পানীয় খাওয়া যাবেনা।

ক্যাম্পেইনে আরো কিছু বিষয় তুলে ধরা হয় যেমন: ডেঙ্গু টেস্ট বা পরীক্ষা কিভাবে করা যেতে পারে? ; জ্বর হওয়ার কত দিনের মধ্যে পরীক্ষা করতে হবে? ; রোগীকে কখন ব্লাড দিতে হয়? ; এন্টিবায়োটিক দেয়া লাগে কিনা?; রোগীকে কখন প্ল্যাটিলেট দিতে হয়? ইত্যাদি।

অর্গানাইজেশন এর কাজের অগ্রগতির জন্য ফাউন্ডার ঊর্মিলা ইয়াসমিন এবং সোয়াদ রেহমান সন্তোষজনক মনোভাব প্রকাশ করেছেন।

Bangladesh Youth Fellowship for Health Awareness (BYFHA) সংগঠন এর প্রসিডেন্ট তানবির হাছান শান্ত জানিয়েছেন, “ডেঙ্গু বিস্তারের অন্যতম প্রধান কারন আমাদেরই নিত্যদিনকার কর্মফল। তাই আমাদের নিজেদেরকেই ডেঙ্গু প্রতিরোধে ঐক্যতার সাথে লড়াই করে যেতে হবে এবং এই লড়াইয়ের প্রধান পদক্ষেপ হলো সচেতনতা। আমরা মনে করছি, সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টা, সম্পৃক্ততা ও সচেতনতামূলক মনোভাবই ডেঙ্গু জ্বরের ব্যাপকতা কমিয়ে অন্যরকম ভূমিকা পালন করতে পারে। সুতরাং, দেশের নাগরিক হিসেবে আমাদের নিজেদের সর্তক হতে হবে এবং অন্যকেও সর্তক করতে হবে। ‘আতঙ্ক নয় আসুন সচেতন হই, ডেঙ্গু প্রতিরোধ গড়ে তুলি’।”

আমাদের কর্মসূচির দৃষ্টিভঙ্গি হল ডেঙ্গু মহামারী নির্মূল এবং এই আঞ্চলিক ও মৌসুমী মহামারীর দীর্ঘস্থায়ী ফলপ্রসূ সমাধান খোঁজার ব্যাপারে মানুষের মধ্যে একটি দৃষ্টিভঙ্গি চেতনা এবং স্বীকৃতি তৈরি করা।

“আসুন ইতিবাচক পরিবর্তন করি”

ইভেন্ট লিংকঃ https://facebook.com/events/s/byfha-presents-dengue-fever-er/877416572976630/

পেজ লিংকঃ https://www.facebook.com/byfha.official/


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com
P