Logo
শিরেোনাম ::
শহীদ শেখ রাসেলের জন্মদিনে রাজশাহী জেলা ছাত্রলীগের আলোচনা সভা ও দোয়া গাউছিয়া অটো রাইচ মিল মালিকের পক্ষ থেকে পটিয়া মুন্সেফ বাজারে পণ্য বিক্রয় কেন্দ্রের শুভ উদ্বোধন গরীব,দুস্থ ও জেলেদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করলেন প্রকৌশলী মোহাম্মদ হোসাইন বিশ্বসেরা গবেষকদের তালিকায় ডুয়েটের ১৯ শিক্ষক বিশ্বসেরা গবেষকদের তালিকায় পবিপ্রবির ২৩ শিক্ষক তানোর উপজেলা বাসীকে শারদীয় দূর্গা পূজার আগাম শুভেচ্ছা জানিয়েছেন যুবলীগ নেতা মঈনুদ্দীন সোনার বাংলা সমাজকল্যাণ সংস্থার নতুন সভাপতি মোঃ আবুল হোসাইন, সাধারণ সম্পাদক মোঃ কামরুল হাসান শ্রীমঙ্গলে আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী ভানুর জয় অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির জন্য মা ইলিশ রক্ষার বিকল্প নেই: হোসাইন ডুয়েটে ২০২০-২১ সেশনের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ

বাঁশখালীত ট্রান্সপোর্ট ব্যবসায়ী খুন করা প্রকৃত আসামিরা ধরাছোঁয়ার বাইরে

মোঃ মিজানুররহমান / ৫৯৭ বার
আপডেট সময় : শনিবার, ১৬ মে, ২০২০

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার সাধনপুর ও কালীপুর ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী ভাসাইন্যার দোকান এলাকায় জামাত শিবিরের একটি দলবদ্ধ সিন্ডিকেট এলাকার সাধারণ মানুষকে জিম্মি করে বিভিন্ন ভাবে চাঁদা আদায় করে আসছে।

তাদের কথা অমান্য করলে এলাকার নিরীহ লোকজনদের বিভিন্ন ভাবে নির্যাতন চালাতো ওই সিন্ডিকেটের সদস্যরা। তাদের এই কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ করায় গত সোমবার রাতে ও মঙ্গলবার সকালে স্থানীয় মৃত আলী মিয়া ও মরিয়ম খাতুনের পুত্র মো. গফুরের বসতঘরে দা, কিরিচ ও লোহার রড নিয়ে দফায় দফায় সন্ত্রাসী হামলা চালায় ওই সিন্ডিকেটের সদস্যরা।

এ সময় সন্ত্রাসীরা মোঃ জহিরুল ইসলাম ও তার পরিবারের সদস্যদের কিরিচ দিয়ে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে জখম করে ও তার বসতঘর ভাংচুর করে।

এছাড়াও সন্ত্রাসীরা মোঃ জহিরুল ইসলামের ট্রান্সপোর্ট ব্যবসার ১৫ লাখ টাকা লুটপাট করে নিয়ে যায় বলে জানান তার স্ত্রী নুর আয়েশা বেগম। সন্ত্রাসীদের এলোপাথাড়ি কিরিচের আঘাতে মো. জহিরের অবস্থা আশংকাজনক হলে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

তার অবস্থার অবনতি হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করে।

এ্যাম্বুলেন্স যোগে চমেক হাসপাতালে নেয়ার পথে ভাসাইন্যার দোকান এলাকায় পৌছামাত্র সন্ত্রাসীরা এ্যাম্বুলেন্স আটকিয়ে তাকে পুনরায় ছুরিকাঘাত করলে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু ঘটে।

নিহত মোঃ জহিরুল ইসলামের ভাই সন্ত্রাসীদের আঘাতপ্রাপ্ত মো. জামাল উদ্দিন বলেন, ‘স্থানীয় নেজাম, আবদুল হক, মহিউদ্দিন, ইলিয়াছ, কামাল উদ্দিন, মনির আহামদ ও এয়াছিনের নেতৃত্বে জামাত- ও বিএনপির রাজনীতির সাথে জড়িত সংঘবদ্ধ সন্ত্রাসীরা এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে সাধারণ মানুষকে জিম্মি করে বিভিন্ন ভাবে জায়গা-জমি হাতিয়ে নেয়। এর প্রতিবাদ করায় তারা আমাদের বসতঘরে এসে দা, কিরিচ নিয়ে আমাদের ওপর হামলা চালায়।

সন্ত্রাসীরা আমার ভাইকে কিরিচ দিয়ে নির্মম ভাবে হত্যা করেছে এবং আমাদের ওপর অমানসিক নির্যাতন চালিয়েছে।’
এখন এলাকার সচেতন নাগরিক যারা এই পাশবিক হত্যার বিচার দাবী করছে তাদের কে বিভিন্ন ভাবে হত্যার হুমকি দিচ্ছে।
বাঁশখালী থানার ওসি রেজাউল ইসলাম মজুমদারের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন,আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আসামীদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রেখেছে।তিনি বলেন ইতিমধ্যে এজহার ভোক্ত দুইজন আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে,বাকী আসামীদের শীগ্রই আইনের আওতায় আনা হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর
Theme Created By ThemesDealer.Com